ইমরান আল মাহমুদ,উখিয়া:
বিদ্যুৎ, গ্যাস সহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি আওয়ামী সরকারের সর্বগ্রাসী দুর্নীতির প্রতিবাদ এবং ঘোষিত ১০দফা বাস্তবায়নের দাবিতে উখিয়া উপজেলা বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার(৮ এপ্রিল) দুপুরে পশ্চিম কোর্টবাজার অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক পিপি এ্যাড.শামীম আরা স্বপ্না বলেন,” বর্তমানে সরকার তেল, গ্যাস,চাউল সহ নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি করেছে। কেউ সত্যি কথা তুলে ধরলে তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দেওয়া হচ্ছে। মানুষের কথা বলার স্বাধীনতা খর্ব করা হয়েছে। দ্রব্যমূল্যের দাম কমাতে হবে,ঘরে ঘরে চাকরি দিতে হবে। কৃষকদের সারের দাম কমাতে হবে। আপনারা প্রশাসনকে ভয় পাবেন না। গুলি করলে প্রথমে আমাদের করবে। আমরা আপনাদের সাথে সবসময় আছি। আমরা সবসময় সামনের কাতারে থাকবো। জনগণ যাতে মৌলিক অধিকার ফিরে পায়। যার ভোট সে দিতে পারে সেজন্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ১০ দফা ঘোষণা করেছেন। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করার দাবি আদায়ে আমরা সবসময় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়বো।”

আগামী আন্দোলনের শরিক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে স্বপ্না বলেন,”কেন্দ্র থেকে যখন যে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে আপনারা উখিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক সোলতান মাহমুদ চৌধুরীর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকবেন।”

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এম মোকতার আহমদ বলেন,”এদেশের জনগণ আওয়ামী লীগ সরকারকে এক মিনিটের জন্যও বিশ্বাস করেনা। বর্তমান নির্বাচন কমিশন একবার বলে ইভিএমে ভোট হবে,আবার বলে ব্যালটে হবে। ব্যালট আর বুলেট কোনোদিকে বিএনপির মাথাব্যথা নেই। আমাদের একটাই লক্ষ্য বর্তমান সরকারের পদত্যাগ নিশ্চিত করে এমন নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে হবে যেখানে আমার ভোট আমি দিবো,যাকে খুশি তাকে দিবো।”

অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতির বক্তব্যে পুলিশকে হুশিয়ারী উচ্চারণ করে উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী বলেন,” আপনারা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী। আমাদের ট্যাক্সের টাকায় আপনাদের সংসার চলে। সকল দলকে সমান রাজনৈতিক অধিকার দিতে হবে। যারা অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি করছেন তাদেরও আমরা চিহ্নিত করে রাখবো। তাই সবাই ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি করবেন না।”

উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সোলতান মাহমুদ চৌধুরী বলেন,”২০০৮ সালের পর থেকে এদেশের যুব সমাজ ছাত্র সমাজ কেউ ভোট দিতে পারেনি। বর্তমানে আওয়ামী লীগ সরকারের চালাকি জনগণ বুঝে গেছে। বিএনপির যে সফটওয়্যার রয়েছে সে সফটওয়্যার থেকে আওয়ামী লীগের ভোট চোরেরা পালাবার কোনো সুযোগ নেই। আমরা মামলা হামলা পরোয়া করিনা। আগামী ঈদের পরে এমন আন্দোলন হবে এদেশে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে ভোটাধিকার ফিরিয়ে বাধ্য হবে এ সরকার। আমাদের আজকের অবস্থান কর্মসূচি থেকে জানাতে চাই,এদেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। গুম, খুন,লুটপাট,মামলা, হামলা বন্ধ করতে হবে।”

অবস্থান কর্মসূচি সঞ্চালনা করেন সেলিম সিরাজী ও শাহ আমিন চৌধুরী। অবস্থান কর্মসূচিতে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন বিএনপি, যুবদল,ছাত্রদল,স্বেচ্ছাসেবকদল,শ্রমিকদল,তাতীদলের নেতৃবৃন্দরা বক্তব্য রাখেন।