শাহেদুল ইসলাম মনির, কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় ধর্ষনের শিকার হয়েছে ৭ বছর বয়সী এক শিশু। শিশুটি স্থানীয় একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেনীর শিক্ষার্থী।

গত বুধবার (২৭ এপ্রিল ) সন্ধ্যায় ধূরুং বাজারে এ ঘটনা ঘটলে গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুকে কুতুবদিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভুক্তভোগি শিশুর মা জানান, সন্ধ্যায় ঈদের কেনাকাটা করতে প্রতিবেশি রিক্সা চালক দক্ষিণ ধূরুং ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সালামত উল্লাহর পুত্র এবং ৫নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য কাইছারের ভাই আলতার হোসাইনের (৩৭) গাড়ি করে ধূরুং বাজারে যান। বাজার শেষে মাছ কিনার জন্য গাড়ির ড্রাইভার আলতার হোসাইনকে পাঠালে তার সাথে ৭ বছর বয়সী শিশুকেও ডাকে নিয়ে যান। এ সুযোগে বাজারের পূর্ব পাশে আড়ালে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন। ৩-৪ ঘন্টা পর
আনলে দেখা যায় দুই গালে কামড় এবং গায়ে পরনের পেন্ট ছিঁড়া অবস্থায় রিক্সা থেকে নামিয়ে দেই। এসময় কি হয়েছে জিজ্ঞেসা করলে অভিযুক্ত গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। এর আগেও এ ধরনের অনেক ঘটনা রয়েছে এমনকি এলাকার বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের স্কুল কলেজে যাওয়ার পথে বিরক্ত করে। তিনি সঠিক বিচারের দাবি জানান।

ভুক্তভোগী শিশুর পিতা মুঠোফোনে প্রতিবেদককে জানান, এ ধর্ষনের বিষয়ে থানাকে অবগত করার জন্য গেলে উপজেলা সহকারী সার্জন ডা. গোলাম মারুফ আমার স্ত্রীর কাছ থেকে একটি কাগজে জোরপূর্বক টিপ সহি নেন এবং প্রাথমিক রিপোর্টে জালিয়াতি করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। আমি ধর্ষনের সহযোগিতা কারী এবং ধর্ষক আলতার হোসাইনের( ৩৭) বিচার চাই।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা শাহীন আবদুর রহমান জানান, প্রাথমিকভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। ডিএনএ করার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। ওখান থেকেই চূড়ান্ত ফলাফল পাওয়া যাবে।

এ বিষয়ে কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর হায়দার জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।