নির্ধারিত সময় পেরিয়ে অতিরিক্ত সময়েও সমতায় ছিল দুই দল। ম্যাচ গড়ায় ট্রাইবেকারে। তাতেও প্রথম পাঁচটি শটে সমতায় থাকে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২৩ এর ফাইনাল খেলা ভারত ও কুয়েত। সাডেন ডেথে আসে ফাইনালের ফল। ভারতের বেঙ্গালুরুর কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এই ফাইনাল ম্যাচ এমন উত্তেজনায় ভরা ছিল।

ট্রাইবেকারে ভারতের হয়ে ৬ষ্ঠ নিতে আসেন মহেশ সিং। গোল করতে ভুল করেননি এই উইঙ্গার। বিপরীতে কুয়েতের ৬ষ্ঠ শট নেন ডিফেন্ডার খালিদ ইব্রাহিম। তবে তার শট আটকে দিয়ে নায়ক বনে যান গুরপ্রীত। আর ভারতকে এনে দেন সাফের নবম শিরোপা।

টাইব্রেকারে ভারতের হয়ে প্রথম শট নেন সুনীল ছেত্রী। বল জালে জড়াতে ভুল করেননি তিনি। আর কাতারের মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর প্রথম শট ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। তাতে বেশ চাঙ্গা হয়ে ওঠেন ভারতের সমর্থকেরা। দ্বিতীয়, তৃতীয় শটে দুই দলই গোলের দেখা পায়।

টাইব্রেকারে ভারতের উদান্ত সিংহের চতুর্থ শটটি গোলবারের উপর দিয়ে চলে গেলে সমতায় ফেরার সুযোগ পায় কুয়েত। তাদের চতুর্থ ও পঞ্চম শট ব্যর্থ হয়নি। বিপরীতে ভারতের শুভাশিস বোসের পঞ্চম শটও জালের দেখা পায়। এরপর সাডেন ডেথে শিরোপার স্বাদ পায় স্বাগতিকরা।

ম্যাচের ১৫ মিনিটে এগিয়ে যায় কুয়েত। আল বাউসির ডানপ্রান্তের ক্রসে শাবাইব আলখালদি ফাঁকায় গোলকিপারের পাশ দিয়ে প্লেসিং করেন। এরপর ম্যাচে ফিরতে লড়ে যায় ভারত। ৩৮ মিনিটে সমতায় ফিরে ভারত। সুনীল ছেত্রীর ডিফেন্স চেরা পাসে বাঁ দিক থেকে সাহাল আব্দুল সামাদের ক্রসে লালিয়ানজুয়ালা চাংতের দারুণ প্লেসিয়ে স্কোরলাইন ১-১ হয়।

বিরতির পরও উত্তেজনা ছিল ম্যাচে। দুই দলই সুযোগ পায়। কিন্তু গোল করে এগিয়ে যেতে পারেনি।

আরো খবরঃ

রোহিঙ্গা নিপীড়নের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য মোমেনের আহ্বান

সাফের সেরা গোলরক্ষক মুকুট পেলেন জিকো

কাঁচা মরিচের সালাদ নিয়ে বর কনে পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫

বিনোদন