সিবিএন ডেস্ক:
অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বড় ধরনের স্থল অভিযান চালাতে পারে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী। এ বিষয়টি মাথায় রেখে প্রস্তুতি নিচ্ছে তারা।

এরমধ্যেই ইহুদিবাদী দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু হুমকি দিয়েছেন, গাজাকে একটি ‘নির্জন দ্বীপে’ পরিণত করা হবে। তিনি গাজার বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। আর তার এমন হুমকির পর আশঙ্কা দেখা দিয়েছে, যে কোনো সময় ইসরায়েলিরা গাজায় হামলা চালানো শুরু করতে পারে।

শনিবার (৭ অক্টোবর) গাজা উপত্যকা থেকে স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের প্রায় ১ হাজার যোদ্ধা ইসরায়েলে প্রবেশ। এরপর তারা কয়েকশ ইসরায়েলিকে হত্যা করেন।

হামাস এই অভিযান চালানোর পরই শনিবার রাতের দিকে গাজাকে নিশ্চিহ্ন করে ফেলার হুমকি দেন নেতানিয়াহু।

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে অভূতপূর্ব এ হামলার কারণ হিসেবে হামাস জানিয়েছে, পবিত্র মসজিদ আল-আকসাকে অপবিত্রকরণ, অবৈধ বসতি সম্প্রসারণ, সাধারণ ফিলিস্তিনিদের উপর অবৈধ বসতিস্থাপনকারীদের অত্যাচারের জবাব দিতে তারা এই অভিযান শুরু করেছেন।

হামাসের সামরিক কমান্ডার মোহাম্মদ দেইফ এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘ইসরায়েলের বোঝার সময় এসেছে, কোনো পরিণতি ভোগ করা ছাড়া তাদের এসব অপরাধ চলতে পারে না।’

হামাসের এই কমান্ডার জানিয়েছেন, তাদের এ অভিযান অধিকৃত পশ্চিম তীর ও জেরুজালেম পর্যন্ত ছড়াবে।

হামাসের এমন অতর্কিত হামলার কড়া জবাব দেওয়ার হুমকি দিয়ে নেতানিয়াহু শনিবার রাতে এক টেলিভিশন ভাষণে বলেছেন, ‘এই কালো দিনের জন্য আমরা শক্তিশালী প্রতিশোধ নেব। যেসব তরুণ প্রাণ হারিয়েছেন তাদের সবার জন্য বদলা নেব আমরা। আমরা হামাসের সব জায়গায় হামলা চালাব। আমরা গাজাকে নির্জন দ্বীপে পরিণত করব। গাজার বাসিন্দাদের আমি বলছি, আপনারা এখনই চলে যান। আমরা উপত্যকার প্রত্যেকটি কোণায় হামলা চালাব।’