জালাল আহমেদ, কক্সবাজার থেকে:

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এবং সাবেক মন্ত্রী আমান উল্লাহ আমান বলেছেন,” যুগে যুগে রাজপথেই ফায়সালা হয়েছে। নব্বইয়ে বেগম খালেদা জিয়ার আপোসহীন নেতৃত্বে রাজপথে ফায়সালা হয়েছে।এবারও ২০২৩ সালে তারেক রহমানের নেতৃত্বে রাজপথে আমরা ফায়সালা করবো।

আজ ৮ জুলাই (২০২৩) শনিবার দুপুর ২ টায় কক্সবাজার জেলা বিএনপির কার্যালয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ইস্যুতে বিএনপির বিগত আন্দোলনে গুম-খুন, নির্যাতিত, অসহায় ও অসচ্ছল নেতাকর্মীদের সন্তানদের কে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের (জেডআরএফ) উদ্যোগে জেডআরএফ’র রিহ্যাবিলিটেশন কমিটির তত্ত্বাবধানে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শিক্ষা উপ-বৃত্তি-২০২৩ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অতীতের বিভিন্ন আন্দোলন- সংগ্রামের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, “১৯৫২ সালে শহীদদের রক্তের বিনিময়ে রাষ্ট্রভাষা বাংলা পেয়েছি।১৯৬২ সালে ওয়াজি উল্লাহ, মতিউরের রক্তের বিনিময়ে শিক্ষা আন্দোলন সফল হয়েছে ।১৯৬৯ সালে রক্তের বিনিময়ে রাজপথে গণঅভ্যুত্থান সফল হয়েছে।১৯৭১ সালে শহীদ জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে রাজপথে সশস্ত্র যুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন হয়েছে।১৯৯০ সালে রাজপথে জাফর, জয়নাল, দিপালী সাহা , রাউফুন বসুনিয়া, জেহাদ এবং ডাক্তার মিলনের রক্তের মধ্যদিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার আপোসহীন নেতৃত্বে রাজপথে ফায়সালা হয়েছে। জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এবারও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে রাজপথেই ফায়সালা করবো। সেই লক্ষ্যে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। ইনশাআল্লাহ। বিজয় আমাদের সুনিশ্চিত “।

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার সন্তান, বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং সাবেক মন্ত্রী সালাহউদ্দিন আহমেদ সম্পর্কে তিনি বলেন, আপনাদের কক্সবাজারের সন্তান সালাহউদ্দিন আহমেদ কে এই সরকার গুম করে সীমান্ত পার করিয়ে ভারতের জঙ্গলে ফেলে এসেছে। ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলমও গুম করেছে।
অচিরেই সালাহউদ্দিন আহমেদ সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে বাংলাদেশের মাটিতে ফিরে আসবে। তিনি আপনার মাঝে এসে আবারও রাজনীতি করবে।

জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন এর শিক্ষা বৃত্তি প্রকল্প উপ – কমিটির আহ্বায়ক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সহ- সভাপতি অধ্যাপক লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে এবং‌ সংগঠনের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়কারী নুরুল করিম চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় কক্সবাজারে বিএনপির আন্দোলনে নিহত ৩ শহীদ পরিবারের সন্তানদের কে বৃত্তি প্রদান করা হয়।বৃত্তি প্রাপ্ত ব্যক্তির পরিবার হলো: চকরিয়া উপজেলার যুবদল নেতা আবদুল হালিমের পরিবার , পেকুয়া উপজেলার ছাত্রদল কর্মী মরহুম সাজ্জাদ হোসেন‌ পরিবার, ঈদগাঁও উপজেলার বিএনপি’র কর্মী মরহুম আব্দুর রশিদ এর পরিবার। অনুষ্ঠানে অতিথিরা শহীদ পরিবারের সদস্যদের হাতে নগদ অর্থ উত্তোলনের জন্য চেক হস্তান্তর করেন।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন এর সমন্বয়কারী ডাক্তার সৈয়দা তানজিনা,বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং সাবেক এমপি আলমগীর মোহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম আরা স্বপ্না , জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী, কক্সবাজার সদর আসনের সাবেক এমপি ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির মৎস্যজীবী বিষয়ক সম্পাদক লুৎফর রহমান কাজল,বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য , সাবেক এমপি, ডাকসুর সাবেক এজিএস নাজিম উদ্দিন আলম, ডাক্তার অধ্যাপক পারভেজ রেজা কাকন প্রমুখ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডক্টর ফাহিম আহমেদ, অধ্যাপক আবুল শামীম , সাবেক এমপি ও কক্সবাজার জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এটিএম নুরুল বশর চৌধুরী, পৌর বিএনপির সভাপতি রফিকুল হুদা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, জেলা যুবদলের সভাপতি এডভোকেট সৈয়দ আহমদ উজ্জ্বল, ছাত্রদলের সভাপতি শাহাদাত হোসেন রিপন,সাধারণ সম্পাদক ফাহিমুর রহমান ফাহিম প্রমুখ।

উল্লেখ্য যে , সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের স্মরণে প্রতিষ্ঠিত জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন হলো একটি সামাজিক সংগঠন যা ১৯৯৯ সালে সরকারের কাছ থেকে নিবন্ধন নিয়ে আজ পর্যন্ত মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছে।