আমি নাসির উদ্দীন, সভাপতি- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, চাকমারককুল ইউনিয়ন, রামু। বুধবার দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

মূলত চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার নিজের অপকর্ম আড়াল করতে ইউনিয়ন আ:লীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন সিকদারের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র ও হয়রানীমুলক কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে। মূলত চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদারের নানা অপকর্ম, অনিয়ম ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্ছার ভূমিকার কারনে চেয়ারম্যান নুরুর রোষানলের শিকার আমি। চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার এলাকায় একজন বালু খেকো হিসাবে পরিচিত। তিনি একটি বালু মহালের ইজারা নিয়ে বাঁকখালীর ১০টির অধিক পয়েন্টে নিষিদ্ধ ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে। সম্প্রতি এন আলম ফিলিং স্টেশনের দক্ষিন পার্শ্বে বাঁকখালী নদীতে তিনটি বড় ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে লক্ষ লক্ষ টাকা বানিজ্য করেছে। এ নিয়ে জাতীয় দৈনিক কালের কন্ঠ সহ স্থানীয় পত্রিকায় সংবাদ হয়েছিল। তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর টাকার মোহে নানা অনিয়ম-দূর্নীতিতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।তার নিজস্ব সাঙ্গ পাঙ্গ ও গুন্ডাবাহীনির নানা অসামাজিক কর্মকান্ডে অতিষ্ট এলাকার সাধারন জনগন। তার ছত্রছায়ায় এলাকায় চলছে ইয়াবার রমরমা বানিজ্য। তার নতুন চর পাড়া এলাকাটি যেন ইয়াবায় ভাসছে। চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে এসব ইয়াবা ব্যবসায়ীর কাছ থেকে মাসিক মাসোহারা নিয়ে তাদেরকে পৃষ্টপোষকতা করে যাচ্ছে।
আমি দৃঢ়তার সাথে জানাচ্ছি, চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম পরিষদকে নিজের ব্যবসায়ীক প্রতিষ্টানে পরিনত করেছে। মোটা অংকের টাকা নিয়ে অসংখ্য রোহিঙ্গাকে ভোটার করেছেন।
ইউপি নির্বাচনে তার বিরোধি লোকজনকে পরিষদীয় সেবা থেকে বঞ্চিত করছে। নানা অজুহাতে তাদের সাথে র্দূব্যবহার সহ হেনস্থা করছে প্রতিনিয়ত।এমনকি প্রশাসনকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনকে নানাভাবে হয়রানী করে যাচ্ছে। চেয়ারম্যান নুরু মুলত কখনো সক্রিয়ভাবে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন না। তার পিতা ছিলেন জাতীয় পার্টির নেতা। তার এক ভাই ছাত্রদলের ক্যাড়ার আর এক ভাই হেফাজত ইসলামের সাথে জড়িত। মুলত তিনি আওয়ামীলীগের ছত্রছায়ায় থেকে নিজের প্রভাবকে পাকাপোক্ত করে যাচ্ছেন। তিনি হত্যা, ডাকাতি ও ধান কাঠা মামলাসহ অসংখ্য মামলার আসামী। ১৯৯৪ সালে ১০৬ নং হত্যা মামলার তিনি ২ নাম্বার আসামী। এসমস্ত জনপ্রতিনিধির কাছে মানুষ কিভাবে তাদের ন্যায্য মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করবে তা সহজে অনুমেয়। মুলত আমি সিকাদার ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার এর এ সমম্ত নানা অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও সোচ্চার হবার কারনে তার বিরুদ্ধে নানা মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। আমি এ ব্যাপারে চাকমারকুলবাসীকে বিভ্রান্ত না হতে এবং তদন্তপূর্বক প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।