এস.এম.জুবাইদ,পেকুয়া:

মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে, একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না। বাবাকে বাচাঁতে চিকিৎসার জন্য সাহায্যের আকুতি জানিয়েছে তানিয়া নামের স্কুল পড়ুয়া এক শিশু কন্যা। এমন এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের দেখা মেলে কক্সবাজারের পেকুয়ায়।

তথ্যসূত্রে জানা যায়, উপজেলার টইটং ইউনিয়নের কাটা পাহাড় এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ আবুল শামা। তিনি পেশায় একজন কাঠুরিয়া। সে ওই এলাকার মৃত আবুল বশরের পুত্র। তার উপার্জনের অর্থে পরিচালিত হতো বৃদ্ধ মা, ছোট বোন, স্ত্রী, দুই ছেলে মেয়েসহ মোট ৬ জন সদস্য। কিন্তু অভাবের সংসারে তার সেই উপার্জন দিয়ে কোনমতে সংসার পরিচালনা করে। প্রতিদিন পাহাড়ে গিয়ে কাঠ কেটে বাজারে বিক্রি করে কোনমতে বাজার খরচ চালায় সেই। পেটের জন্য দুমুটো অন্ন জোগায় কাঠ বিক্রি করে। তার একমাত্র পেশা সেটা। আর কোনকিছুই করে না সে। কিন্ত ভাগ্যের নিম্নমপরিহাস গত দুই মাস আগে স্থানীয় আবু ছিদ্দিক মাঝির সাথে এক মাসের চুক্তিতে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে গাছ কাটা কাজ করতে যায় সে। সেখানে কাজ করার সময় গাছ চাপায় পড়ে তার বাম পায়ের হাঁড় ভেঙে যায়। এর পর থেকে বন্ধ হয়ে আছে তার উপার্জন। টাকার অভাবে নিতে পারছে না উন্নত চিকিৎসা। এখন তার পায়ে ধরেছে পঁচন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলেছেন পায়ে অস্ত্রোপচার করতে হবে। যার খরচ হতে পারে ৮০ হাজার টাকার মতো। তা না হলে পরবর্তীতে বড় সমস্যা হতে পারে।এদিকে বাবার উন্নত চিকিৎসার সহযোগিতা চাইতে মানুষের ধারে ধারে ঘুরছে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ে তানিয়া। তার পরিবারের পক্ষ থেকে সকলের কাছে চিকিৎসার জন্য বিকাশ পারসনাল নং-০১৩১৮-৩০৯৬০৯ এ সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন তার ছোট্ট শিশু কন্যা।