সংবাদ প্রতিবেদন:
কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার ধলঘাটা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপির ৩ নেতা। আগামী ১৭ জুলাই এ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনে মেম্বার পদে প্রতিদ্বন্দ্বী করছেন- ধলঘাটা ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব মো. নাছির হায়দার, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল ইসলাম বাঁশি এবং ধলঘাটা ইউনিয়নের ৫ নাম্বার ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আবু বক্কর। এরমধ্যে নাছির হায়দার ৯ নাম্বার ওয়ার্ডে, নুরুল ইসলাম বাঁশি ৬ নং ওয়ার্ডে এবং আবু বক্কর ৫ নাম্বার ওয়ার্ডে সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বী করছেন। এরা তিনজনই পেয়েছেন ফুটবল প্রতীক।

নির্বাচনে ৩ নেতার অংশগ্রহণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিএনপির অনেক ত্যাগী নেতাকর্মী। তাদের অভিযোগ, বিএনপি সারাদেশে বর্তমান সরকারের অধীনে সকল নির্বাচন বর্জন করেছে। এরপরও এখানে বিএনপির একাধিক প্রার্থীর নির্বাচনে অংশগ্রহণ দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের শামিল। তাই তাদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে শাস্তিমূলক ব্যবস্থাগ্রহণসহ দল থেকে বহিষ্কার করতে হবে। না হলে দলের ঐক্য ও শৃঙ্খলা ব্যাহত হবে।

নির্বাচনে ৯ নাম্বার ওয়ার্ডে ফুটবল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধিতাকারি ধলঘাটা ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য সচিব মো. নাছির হায়দার জানান- তিনি বিগত নির্বাচনেও মেম্বার পদে অংশ নিয়েছিলেন।

ওই নির্বাচনে কৃত্রিমভাবে তাকে অল্প ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করা হয়েছিল। এরপর থেকে তিনি দীর্ঘদিন মাঠে কাজ করেছেন। জনগণের সাথে ছিলেন। জনগণের দাবির প্রেক্ষিতে এবং মায়ের অনুরোধে এখন বিএনপি করা সত্তেও তাকে নির্বাচনে অংশ নিতে হচ্ছে। তিনি আরও জানান- দল তাকে বহিষ্কার করলেও তিনি আজীবন বিএনপি করে যাবেন। তিনি বিএনপিতে না থাকলে ধলঘাটায় বিএনপির নেতৃত্ব শূণ্যের কৌঠায় চলে যাবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ধলঘাটা ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আলম পুতু জানান- দলীয় নির্দেশনা অমান্য করে বিএনপির ৩ নেতার নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়টি সত্য।

এ ব্যাপারে নির্বাচনে অংশ নেয়া নাছির হায়দার, নুরুল ইসলাম বাঁশি ও আবু বক্করের বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের বিষয়টি ইউনিয়ন বিএনপির পক্ষ থেকে মহেশখালী উপজেলা বিএনপিকে জানানো হয়েছে। এরই মধ্যে উপজেলা কমিটি জেলা কমিটিকে এবং জেলা কমিটির পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় কমিটিকে এ বিষয়ে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে। সহসা তাদের বহিষ্কারসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা কেন্দ্র থেকে ঘোষণা দেয়া হতে পারে।