প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্য আয়োজন হয়েছে কক্সবাজারে। জেলা শ্রমিক লীগের আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বিশাল আনন্দ র‌্যালী, আলোচনা সভা ও কেক কাটা হয়েছে। এই আয়োজনে শ্রমিক লীগের জেলা, প্রতিটি উপজেলা ও ইউনিয়ন থেকে আসা হাজার হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন। এতে উৎসবের আমেজে ভরে উঠে কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরীর শহীদ দৌলত ময়দান।

জেলা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম।

বিকাল ৩টা থেকে শহীদ দৌলত ময়দানে সমবেত হতে থাকে শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা। ক্রমান্বয়ে বিভিন্ন উপজেলা থেকে বিশাল গাড়িবহর ও মিছিল নিয়ে হাজার হাজার নেতাকর্মী লাল পতাকা হাতে নিয়ে এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

শ্রমিক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই বর্ণিল আয়োজন বেলুন উড়িয়ে শুভ উদ্বোধন করে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান। এর আগে বঙ্গববন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রæদ্ধা নিবেদন নেতাকর্মীরা।

এসময় তিনি বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ^ দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। বাংলাদেশ আজ পৃথিবীর বিস্ময়। শেখ হাসিনার তার যোগ্য ও দক্ষ নেতৃত্ব দিয়ে বিশ^নেতার খেতাব অর্জন করেছেন। বাংলাদেশ শেখ হাসিনার হাতে থাকলে ৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট দেশের রূপান্তর হবে। কিন্তু বিএনপি এই দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায়। তারা দেশকে পেছনে টেনে ধরে রাখতে চায়। কিন্তু শেখ হাসিনার বেঁচে থাকতে তাদেরকে মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে দেয়া হবে না। রাজপথে কোনো ফায়সালা হবে না। ফায়সালা হবে ভোটের বাক্সে।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ড হিসেবে শ্রমিক লীগ দক্ষ হাতে এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের যোগ্য নেতৃত্বে পুরো দেশে শ্রমিকলীগ ব্যাপক বিস্তৃতি লাভ করেছে। কক্সবাজারেও শ্রমিকলীগ আওয়ামী লীগের সাথে দক্ষভাবে রাজনীতি করছে। আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে আবারো শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আনতে শ্রমজীবি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।
জেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুল ইলসামের সভাপতিত্বে ও দপ্তর সম্পাদক এম. ওসমান গণির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক শফিউল্লাহ আনসারীসহ অন্যান্যরা।

এসময় শফিউল্লাহ আনসারী বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নত দেশে উপনীত হয়েছে। কিন্তু বিএনপি তা ভÐুল করার চেষ্টা করেছে। বিএনপির এই অপচেষ্টা রুখে দিতে বরাবরের মতো রাজপথে থাকবে শ্রমিক লীগ।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার পৌরসভার সাংগঠনিক সম্পাদক দীপক দাশ, জেলা শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দীন, চকরিয়া উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক ইসমাঈল হোসেন ধলু, সদর উপ

জেলা সদস্য সচিব নেজাম উদ্দীন শাওন, ঈদগাঁও সদস্য সচিব সাইফুল ইসলাম, কক্সবাজার পৌর ছাত্রলীগের হাসান তারেক।
উপস্থিত ছিলেন, জেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ রাসেদুল হক সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তাহের রানা, সদস্য মোঃ গিয়াস উদ্দীন, কামরুল হাসান সোহেল, নজিবুল আলম বাবু, চকরিয়া উপজেলা সভাপতি বশির আলম, মহেশখালী উপজেলা আহŸায়ক আবদুল শুক্কুর, সদস্য সচিব রিপন উদ্দীন রিপন, যুগ্ম আহŸায়ক আবু মুছা কলিম উল্লাহ, রামু উপজেলা আহŸায়ক শফিকুল আলম কাজল, সদস্য সচিব মোঃ আমিন, ঈদগাঁও উপজেলা আহŸায়ক আবু ছিদ্দিক বান্ডি, উখিয়া উপজেলা সদস্য সচিব মোঃ ইউনুছ, যুগ্ম-আহŸায়ক মোঃ সেলিম, চকরিয়া পৌর সভাপতি আবদুল হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ রিদুয়ান, সদর উপজেলা সদস্য নাসির উদ্দীন মাহমুদ, নির্মাণ শ্রমিক লীগের সভাপতি মোঃ ইউসুফ, মৎস্যজীবী শ্রমিক লীগের সভাপতি খোরশেদ আলম, মোঃ মোরশেদ। এছাড়াও বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এই আলোচনা সভায় জেলা ও উপজেলা শ্রমিক লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। আলোচনা সভা শেষে অনুষ্ঠিত র‌্যালীতে অংশ নেন নেতাকর্মী। র‌্যালীটি কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেছেন।